রাতে ঘুমানোর আগে যে পানীয় ১ গ্লাস খেলে উ’ধাও মেদ-ভুঁড়ি

রাতে ঘুমানোর আগে যে পানীয় ১ গ্লাস খেলে উ’ধাও মেদ-ভুঁড়ি

দিনে দিনে আমাদের ব্যস্ততা যেন বেড়েই চলছে। কোন অবসর নেই আমাদের জীবনে! ঠিক ব্যস্ততার সাথে পা’ল্লা দিয়ে যেমন আমরা কমে যাচ্ছে আমাদের পরিশ্রম ও একবারে অলসও হয়ে যাচ্ছি। বর্তমানে আমরা যেন কাজ ছা’ড়া কিছুই বুঝি না। প্রতিনিয়ত মানসিক পরিশ্রমের ফলে আমরা এতটাই ক্লান্ত হয়ে পড়ি যে, আমাদের আর অন্য কোন পরিশ্রম করতে ইচ্ছে করে না। আর যার ফ’লে লা’ফিয়ে লা’ফিয়ে বাড়ছে মেদ-ভুঁড়ি।

সমস্ত দিনের ক্লা’ন্তি শেষে শরীরের দিকে তাকানোর আমাদের কোন সময় বা ইচ্ছা কোনটাই আর থাকে না। এখন সময় বদ’লেছে, আগের দিনে মানুষের ব্যাপক শারী’রিক পরিশ্রম ছিল, নানা প্রকার খেলাধুলা ছিল, যা শারী’রিক ব্যয়ামের কাজ করত। কিন্তু বর্তমানে সময় বদ’লেছে আর শারি’রীক পরিশ্রম একবারে নেই বললেই চলে।

বিশেষ করে যারা মো’টা তাদের শারী’রিক গঠনের কারণে তাদের দেখতে বিশ্রী লাগে। তবে এই মুটিয়ে যাওয়ার কারন অবশ্য রয়েছে অনেক। যেমন; শারী’রিক পরি’শ্রম না করা, ফাস্টফুড জাতীয় খাবার খাওয়া, অতিরিক্ত জঙ্কফুড খাবার খাওয়া কারণে শরীরে মেদ, চর্বির পরিমাণ বেড়ে যায় অনেক। আর এই অতি’রি’ক্ত মেদ, চর্বির কারণে শরীরে নানা রকম রো’গ বাসা বাঁ’ধে।

শরীরে মেদ বর্তমানে এক বিশাল সম’স্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। বর্তমানে জীবনযাত্রায় প্রায় প্রতিটি মানুষেরই ভুঁ’ড়ি রয়েছে। তাই রমরমিয়ে বাড়ছে জিম ব্যবসা, ডায়েট প্লানিং। কিন্তু যেন কোন কিছুতেই কোন কাজ হচ্ছে না। বরং উল্টো বেড়েই চলছে ভুঁড়ি। আর ডায়েট প্লানের কারণে সে’দ্ধ খাবার খেয়ে শ’রীর হয়ে পড়ছে দূ’র্বল।

মেদ, চর্বি ভুঁড়ি কমানো এক ঘরোয়া উপায় আজ আপনাদের জানিয়ে দিব যা রোজ রাতে ১ গ্লাস করে পান করলে উধাও হবে সব কিছু। এজন্য আপনাকে একটি পাতি লেবু, একটি শশা, ১ চামচ আদা বাটা, গুটি কয়েক পার্সেল পাতা একত্রে মিশিয়ে ব্লেন্ডারে জুস করে নিতে হবে আর রাতে শোবার আগে রোজ ১ গ্লাস করে পান করবেন। দেখবেন ১ সপ্তাহের ভিতর ভূঁড়ি কমে পেট স্বাভাবিক হয়ে যাবে।

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button
error: Content is protected !!
Close
Close