গ’র্ভব’তী হতে স্বামীর সাথে কখন মি’লি’ত হবেন?

গ’র্ভব’তী হতে স্বামীর সাথে কখন মি’লি’ত হবেন?

গ’র্ভধার’ণের সবচেয়ে উপযুক্ত সময় জেনে নিতে জনপ্রিয় ওভুলেশন ক্যাল্কুলেটর ব্যবহার করুন। এর মাধ্যমে আপনার ডিম্বস্ফোটনের সময় গণনা করুন এবং স্বামীর সাথে কখন মিলিত হলে গ’র্ভব’তী (Pregnant) হওয়ার সবচেয়ে বেশী সম্ভবনা আছে তা জেনে নিন। ডিম্বস্ফোটনের সাতদিন ৭ দিনব্যাপী সময়ের মধ্যে স্বামীর সঙ্গে মিলন হলে একজন স্ত্রীর গ’র্ভব’তী হবার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশী।

সাধারণত শেষ মাসিকের (period) ১২ দিন পর এই সময় আসে।একটি ডিম্বাণু ডিম্বাশয় থেকে নির্গত হওয়ার পর ১২ থেকে ২৪ ঘন্টা পর্যন্ত জীবিত থাকে। গর্ভধারণের (Pregnancy) লক্ষ্যে এ সময়ের মধ্যেই ডিম্বাণুটিকে শুক্রাণুর সাথে মিলিত হতে হবে। এমন কোন কথা নেই যে যেই দিন ডিম্বস্ফোটন হয় শুধু সেই দিন মিলিত হলেই আপনি গ’র্ভব’তী (Pregnant) হতে পারবেন। একজন নারীর শরীরে শুক্রাণু ২-৩দিন পর্যন্ত বেঁচে থাকতে পারে।

এই কারণে ডিম্বস্ফোটনের ২-৩ দিন আগে মিলন হলেও শুক্রাণুটি ডিম্বাণুর জন্যে ডিম্বনালীর ভেতর অপেক্ষা করে থাকতে পারে।ডিম্বস্ফোটনের সঠিক সময় নির্ধারণ সম্ভব না, যদি না আপনি ফার্টিলিটি সচেতন হোন (বাইরের লিংক দেখুন)। অধিকাংশ নারীর মাসিক (period) শুরুর ১০-১৬ দিন আগে ডিম্বস্ফোটন হয়।আরও পরিস্কার করে বলতে গেলে মাসিকের (period) প্রথম দিন থেকে একজন নারীর মাসিক (period) চক্র গণনা করা হয়। এর কিছুদিন পর তার ডিম্বস্ফোটন হয় এবং তার ১০-১৬ দিন পর তার আবার মাসিক

হয়। স্বাভাবিক নিয়ম অনুযায়ী মাসিকের (period) গড় চক্রকাল হচ্ছে ২৮ দিন অন্তর অন্তর। তবে কোনো কোনো ক্ষেত্রে এর কিছু বেশি অথবা কম সময়েও মাসিক হতে পারে, যা অস্বাভাবিক নয়।আরো পড়ুনএই ৪টি খাবার খেলে বয়স বাড়লেও চেহারায় বয়সের ছাপ পড়বে না!বর্তমান যুগের মানুষ বেশি স্বাস্থ্য ও রূপ সচেতন। তারপরও দূষিত পরিবেশ ও নানা অনিয়মের

কারণে আমরা বুড়িয়ে যাচ্ছি। বয়স ধরে রাখা না গেলেও কিন্তু চেহারার বয়স ঠিক রাখতে পারবেন। কিন্তু সেটি কিভাবে? মুখে বয়সের ছাপ দূর করতে সম্প্রতি এক গবেষণায় বেশ কিছু খাবারের নাম উঠে এসেছে।যে খাবারগুলো প্রতিদিন ডায়েটে রাখলে চেহারায় বয়সের ছাপ দীর্ঘদিন পড়বে না। চলুন তাহলে দেখে নেওয়া যাক চেহারায় লাবণ্য আনার চারটি কার্যকর খাবার- ১।

টক দই বয়স পঁয়ত্রিশ পেরোলেই হাড় দুর্বল হতে থাকে। এতে বাত বা অস্টিওপরেসিসের মতো সমস্যা দেখা দেয়। হাড়ের সমস্যা সমাধানে সব থেকে কার্যকর উপাদান হচ্ছে ক্যালসিয়াম। টক দইয়ে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম উপস্থিত।প্রতিদিন ডায়েটে এক বাটি টক দই হাড় সুস্থ রাখতে সহায়তা করে। ২।বাদাম শরীর ও ত্বকের স্বাস্থ্যের জন্য বাদাম খুবই উপকারী একটি উপাদান। বাদামের মধ্যে প্রচুর পরিমাণ আনস্যাচুরেটেড ফ্যাট, ভিটামিন, খনিজ, ফাইটোকেমিক্যাল ও অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট থাকে।

তাই রোজ ঘুম থেকে উঠে ৩-৪টি কাজু বাদাম ও বিকেলে এক মুঠো চিনা বাদাম খুবই উপকারি।এ ছাড়া বাদাম বেটে ফেসিয়াল বা বাদাম তেল দিয়ে চুলে ব্যবহার করলে ত্বক ও চুলের স্বাস্থ্য ভাল থাকবে। ৩।চকোলেট প্রতিদিন ডায়েটে চকোলেট,কোকো বা চকোলেট জাতীয় কিছু খেতে পারলে উচ্চ রক্তচাপ, কিডনির সমস্যা এমনকি ডিমেনশিয়ার মতো রোগ প্রতিরোধ করে। শরীরে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখতেও চকোলেট খুব কার্যকরি ভূমিকা রাখে।বলিরেখা দূর করতেও চকোলেটের ফেশিয়াল খুব উপকারি।

এক কথায় চকোলেট আপনার চেহারায় বয়সের ছাপ পড়তে দেবে না। এই ৪টি খাবার খেলে বয়স বাড়লেও চেহারায় বয়সের ছাপ পড়বে না ৪।মাছ-মাছের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড উপস্থিত, যা স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত উপকারী।প্রতিদিন ডায়েটে মাছ থাকলে বয়সকালে চোখে ছানি পড়ার সম্ভাবনা অনেকটাই কমে যায়। এ ছাড়া মাছের তেল হার্ট ভাল রাখে ও রক্তে কোলেস্টেরলের পরিমাণও নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে।নিউজটি শেয়ার করার অনুরোধ রইলো

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button
Close
Close