মেডিকেলে চান্স পাওয়া সেই মুন্নীর হাতে ভর্তির টাকা তুলে দিল ছাত্র অধিকার পরিষদ

মেডিকেলে চান্স পাওয়া সেই মুন্নীর হাতে ভর্তির টাকা তুলে দিল ছাত্র অধিকার পরিষদ

মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় তিন হাজার ১১০তম হয়ে দিনাজপুরের এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজে ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন সুজানগরের ভ্যানচালকের মেয়ে মোছা. জান্নাতুম মৌমিতা মুন্নী।তবে মেধার জোরে মেডিকেলে চান্স পেলেও আর্থিক দুশ্চিন্তা তাকে ঘিরে ধরেছে। এ অবস্থায় মুন্নীর পাশে দাঁড়িয়েছেন অনেকে। সর্বশেষ অদম্য মেধাবী শিক্ষার্থী মুন্নীর হাতে ভর্তির টাকা হস্তান্তর করেছে ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদ। গতকাল বুধবার (৭ এপ্রিল) আগেই দেওয়ায় প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী মুন্নীর ভর্তির খরচ দেন সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম-আহবায়ক ফারুক হাসান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘আমরা ঘোষণা দিয়েছিলাম যে মুন্নীর ভর্তির খরচ বহন করবো। আমরা যা বলি তা বাস্তবায়নও করি, ভবিষ্যতেও করবো। অনেকেই মুন্নীর পাশে দাঁড়ানোর জন্য ঘোষণা দিয়েছিলেন, আপনাদেরকেও ধন্যবাদ। আসুন আমরা মিলেমিশে একটি মানবিক বাংলাদেশ বিনির্মাণ করি।’

এসময় পাবনা জেলা শাখার নেতৃবৃন্দকে ধন্যবাদ জানান তিনি। জানা গেছে, পাবনা মেডিকেল কলেজ কেন্দ্র থেকে পরীক্ষায় অংশ নেন তিনি। পরীক্ষায় ১০০ নম্বরের মধ্যে তার নম্বর ৬৯.৭৫ নম্বর। পাবনার সুজানগর উপজেলার উদয়পুর গ্রামের বাকীবিল্লাহ ও রওশন আরা খাতুনের মেয়ে মুন্নী। চার সন্তানের মধ্যে সে সবার বড়। একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি তার পিতা দরিদ্র ভ্যানচালক।

নিজ বাড়ির দুই কাঠা জায়গা ছাড়া কিছুই নেই। একটি ছোট টিনের ঘরে থাকেন পরিবারের সবাই। তার মেডিকেলে ভর্তি ও পড়ার খরচ চালানোর সামর্থ্য পিতার নেই। মুন্নী স্থানীয় পোড়াডাঙ্গা হাজী এজেম আলী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করেন। পরে পাবনার সরকারি এডওয়ার্ড কলেজ থেকে এইচএসসিতে জিপিএ-৫ পান। সূত্রঃ টিডিসি

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button
Close
Close