৪৩তম বিসিএস: ৫ লাখে পৌঁছাতে পারে আবেদন সংখ্যা

৪৩তম বিসিএস: ৫ লাখে পৌঁছাতে পারে আবেদন সংখ্যা

৪৩তম বিসিএসের অনলাইন আবেদনের তৃতীয় ধাপে সময়সীমা বাড়িয়ে আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত করায় এ পর্যন্ত ৪ লক্ষাধিক আবেদন জমা পড়েছে বলে পাবলিক সর্ভিস কমিশন (পিএসসি) জানিয়েছে। আগামী দিনগুলোতে আবেদনের সংখ্যা ৫ লাখে পৌঁছতে পারে বলে জানিয়েছেন পিএসসির পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক।

পিএসসির পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ক্যাডার) নুর আহমদ বৃহস্পতিবার বলেন, কয়েক ধাপে আবেদনের সময়সীমা বৃদ্ধি করায় প্রতিনিয়ত আবেদনকারীর সংখ্যা বাড়ছে। এ পর্যন্ত ৪ লাখ ৮ হাজার আবেদন জমা হয়েছে। আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত এ সংখ্যা ৫ লাখে পৌঁছাতে পারে।

তিনি বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় সব ধরনের পরীক্ষা স্থগিত রয়েছে। নানান জটিলতার কারণে অনেকে আবেদন করতে পারছিল না বলে কমিশনের সম্মতিতে কয়েকধাপে সময়সীমা বাড়ানো হয়।

সবার সমান অংশগ্রহণ নিশ্চিত করার জন্য কমিশন এ সিদ্ধান্ত নেয়।গত ২৯ মার্চ পিএসসি এক বিজ্ঞপ্তিতে ৪৩তম বিসিএস পরীক্ষার আবেদেনের সময়সীমা বাড়ানোর বিষয়টি জানানো হয়। এর আগে ৩১ জানুয়ারি থেকে আবেদনের সময়সীমা বাড়িয়ে ৩১ মার্চ পর্যন্ত করা হয়েছিল।

৪৩তম বিসিএসে বিভিন্ন ক্যাডারে ১ হাজার ৮১৪ জনকে নিয়োগ দেয়া হবে। প্রশাসন ক্যাডারে ৩০০ জন, পুলিশ ক্যাডারে ১০০ জন, পররাষ্ট্র ক্যাডারে ২৫ জন, শিক্ষা ক্যাডারের জন্য ৮৪৩ জন, অডিটে ৩৫ জন, তথ্যে ২২ জন, ট্যাক্সে ১৯ জন, কাস্টমসে ১৪ জন ও সমবায়ে ১৯ জন নিয়োগ পাবেন। এর বাইরে লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মধ্য থেকে সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ৩ হাজারের মতো নন-ক্যাডার পদে নিয়োগের জন্য সুপারিশ করবে পিএসসি। Sotro :https://thedailycampus.com/

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button
Close
Close