কোরআন তরজমা করতে গিয়ে ইসলাম গ্রহন করলেন মার্কিন যাজক

কোরআন তরজমা করতে গিয়ে ইসলাম গ্রহন করলেন মার্কিন যাজক

পবিত্র কোরআন অনুবাদ করতে গিয়ে ইসলাম ধর্মগ্রহণ করেছেন এক মার্কিন খ্রিস্টান যাজক। তার নাম স্যামুয়েল আর্ল শ্রপশায়ার। মঙ্গলবার সৌদি আরবের গণমাধ্যম সাবাককে দেয়া এক সাক্ষাতকারে তিনি একথা জানিয়েছেন। দ্য নিউ আরবের এক প্রতিবেদনে বলা হয়,

সাক্ষাতকারে স্যামুয়েল আর্ল শ্রপশায়ার জানান- সৌদিতে যাওয়ার পর সেখানকার মুসলমানদের বন্ধুত্বপূর্ণ আতিথেয়তায় মুগ্ধ হয়ে তিনি ইসলাম গ্রহণ করেছেন।৭০ বছর বয়সী সাবেক এ মার্কিন যাজক জানান, ২০১১ সালে প্রথমবার সৌদি আরবের জেদ্দায় কোরআনের অনুবাদ করতে যান।

সেই সময় মার্কিন গণমাধ্যমে মুসলমানদের নেতিবাচকভাবে উপস্থাপন করা হত। কিন্তু আমি খুব দ্রুতই বুঝতে পারি যে, মার্কিন গণমাধ্যমে আমি যা দেখেছি ও শুনেছি, তার সঙ্গে এখানকার (সৌদি আরব) বাস্তবতা সম্পূর্ণ ভিন্ন।তিনি বলেন, আমি এখানে (সৌদি) অনেক মহৎ মানুষ দেখতে পেয়েছি- যারা মুসলিম অথবা অমুসলিম-সেই বিবেচনা না করে শুধু মানুষ হিসেবে বিবেচনায় নিয়ে সবার সঙ্গে নম্র ও ভালো আচরণ করেন।

এতেই আমার ইসলামের প্রতি ভালোলাগা তৈরি হয়ে যায়।‘এরপর আমি ইসলাম ও পবিত্র গ্রন্থ কোরআন সম্পর্কে গবেষণা করতে গিয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করি,’ বললেন সাবেক মার্কিন যাজক স্যামুয়েল।

তিনি আরও বলেন, সৌদিরা একমাত্র আল্লাহর এবাদত করেন এবং তাদের নীতি-নৈতিকতা অত্যন্ত ভালো।আরও সংবাদ নামাযের চেয়ে শান্তির আর কিছুই নেই: মুশফিক জাতীয় দলের জনপ্রিয় ক্রিকেটার মুশফিকুর রহিম তার ফেসবুক ভেরিফায়েড পেজে সম্প্রতি মসজিদের একটি ছবি আপলোড করে স্ট্যাটাস দিয়েছেন মসজিদের পাশেই পরম শান্তি। মুশফিকুর রহিম নামাজ পড়তে গিয়ে মসিজদের ছবি তুলে নিজের

ফেসবুক পেজে আপলোড করে লেখেন, যদি আপনি নামাজি হন আর আপনার হোটেলের পাশে যখন কোনো মসজিদ থাকে তবে এর চেয়ে আনন্দের বা শান্তির আর কিছুই নেই।আমাদের উপর ৫ ওয়াক্ত নামাজ আল্লাহ পাক ফরজ করেছেন। অথচ আমরা আজ নামাজের ব্যাপারে উদাসীন,আমরা এখন শুক্রবারী নামাজী হয়ে গেছি, শুক্রবার আসলে মসজিদে জায়গা পাওয়া যায় না

কিন্তু সারা সাপ্তাহ মসজিদ খালি থাকে,আফসোস!ইমানদারদের প্রতি,আল্লাহ তো আমাদেরকে বানিয়েছেন একমাত্র তার ইবাদতের জন্য,অতচ আমরা ইবাদতের সাথে নয়,আল্লাহ আমাদের সবাইকে পরিপূর্ণ ইমানদার বানিয়ে আমাদের সমস্ত গোনাহ মাফ করিয়ে দিন৷ আমীন

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button
Close
Close