যারা নতুন চাকরির প্রস্তুতি নিচ্ছেন তাদের জন্য সেরা পরামর্শ!

যারা নতুন চাকরির প্রস্তুতি নিচ্ছেন তাদের জন্য সেরা পরামর্শ!

© এস.এম.আলাউদ্দিন মাহমুদ সহকারী জজ /জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট। শুধু পড়াশোনা করলেই সহজে ভাল চাকরি পাওয়া যায় না। চাকরি পাওয়ার জন্য পড়াশোনার পাশাপাশি সঠিক কৌশল অবলম্বন করাও খুব গুরুত্বপূর্ণ। যারা বার বার ব্যর্থ হচ্ছেন তাদের বেশিরভাগই সঠিক কৌশল অবলম্বন না করার কারণেই ব্যর্থ হচ্ছেন। তাই সবার আগে আপনার সঠিক Technique অবলম্বন করা উচিত। কৌশলে আপনি কম পড়াশোনা করেও সহজেই ভালো চাকরি পাবেন।

আপনার মনে হতে পারে, এত এত পরীক্ষার্থী আমার দ্বারা কিছুই হবে না। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে সত্যিকারের পরীক্ষার্থীর সংখ্যা খুবই কম। একটি বিষয় খেয়াল করে দেখবেন, একজন মানুষ একাধিক চাকরি পাচ্ছে অন্যদিকে কেউ কেউ একের পর এক পরীক্ষা দিচ্ছে কোন পরীক্ষাতেই VIVA তো দূরের কথা প্রিলিমিনারীই পাস করতে পারছে না।

এর মূল কারণ হচ্ছে, আপনি সঠিক কৌশল অবলম্বন করেননি ও আপনার দুর্বলতার জায়গাগুলো চিহ্নিত করে সমাধান করতে পারেননি। হাজার হাজার Motivational লেখা পড়ে ও শুনে আপনি কখনোই সহজে চাকরি পাবেন না, যতক্ষণ না পর্যন্ত আপনি নিজেকে নিজে Motivate করবেন।

কোন চাকরিকেই ছোট করে দেখবেন না। অনেকেই আছেন যারা প্রথমদিকে BCS ছাড়া অন্য কোন চাকরির পরীক্ষাই দেন না। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে প্রতি বছর মাত্র ২০০০ থেকে ২৪০০ এর বেশি ক্যাডার হয় না। কিন্তু প্রতি বছর কত লক্ষ ছাত্র-ছাত্রী Graduate হচ্ছে আপনারাই চিন্তা করুন৷ তাই BCS এর পাশাপাশি অন্য সব জবের পরীক্ষা প্রথম থেকেই দেওয়ার চেষ্টা করবেন৷করোনা পরবর্তীকালে আপনাদের এক কঠিন সময় পার করতে হবে। সেই সময়ে যারা যোগ্য কেবল তারাই টিকে থাকবে । বাকীদের অনেক কঠিন সময় মোকাবেলা করতে হবে। তাই এই বন্ধের সময়টুকু অবহেলায় না কাটিয়ে নিজেকে যোগ্য হিসেবে গড়ে তুলুন।

চাকরীর কোন অভাব নেই বরং যোগ্য প্রার্থীর বড় অভাব। যোগ্যদের পিছনে জব দৌড়ায়, যোগ্যরা জবের পিছনে দৌড়ায় না।আবার অনেকের ধারণা হচ্ছে মামা খালু না থাকলে চাকরি হয় না, এগুলো সঠিক নয়৷ আপনি যোগ্য হলে আপনি আপনার পছন্দের চাকরি সহজেই পাবেন, ইনশাআল্লাহ্।এছাড়া অনেকেই আছেন যারা বেশি পড়তে চান কিন্তু বন্ধু বান্ধবরা তাদেরকে মজা করে আঁতেল বলে। মনে রাখবেন, আপনি যখন চাকরি পাবেন তখন তারাই সবার আগে আপনার কাছে সাজেশন চেয়ে বেড়াবে এবং আপনাকে বলবে আপনিই সঠিক ছিলেন।

তাই আপনার পড়ালেখা চালিয়ে যান। কে কি বললো এগুলো শুনার সময় আপনার নাই। কেউ Negative কথা বললে সাথে সাথে রিপ্লাই দেওয়ার দরকার নাই, কারণ আপনার ফলাফল বেস্ট রিপ্লাই হয়ে যাবে।আপনি চিন্তা করছেন, আপনার এই সমস্যা ওই সমস্যা যার কারণে আপনি পড়াশোনাতে মনোযোগ দিতে পারছেন না। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে সমস্যা ছাড়া পৃথিবীতে কেউ নেই। আপনাকে মনে করতে হবে যে আপনার কোন সমস্যা নেই কারণ সমস্যাকে সমস্যা মনে করলেই সমস্যা। আপনি চাকরী পেলে হাজারটা সমস্যা নিমিষেই শেষ হয়ে যাবে।

আমি একজন ম্যাজিস্ট্রেট, আমি চাইলে অর্থনৈতিক সাহায্য ছাড়াও বিভিন্নভাবে একজন মানুষকে সাহায্য করতে পারি যা আপনি বেকার থাকা অবস্থায় পারবেন না। তাই আগে নিজের একটি ভাল অবস্থান সৃষ্টি করুন তারপর সবাইকে নিয়ে চিন্তা করুন এবং নিজের সাধ্যমত সাহায্য করার চেষ্টা করুন। নিজের অবস্থান সৃষ্টির আগেই বেশি কিছু করতে যাবেন না।পড়াশোনার করার কোন নির্দিষ্ট সময় নাই।

আপনার যখন ভাল লাগবে তখনই পড়বেন। কে আপনার থেকে বেশি মেধাবী, কে কি পড়লো এগুলো নিয়ে কখনোই চিন্তা করবেন না। নিজেকে সবসময়ই সেরা ভাবুন।সর্বোপরি, যথেষ্ট বিনয়ী, ভদ্র এবং নিজেকে সবসময়ই ছোট ভাবতে শিখুন। কারণ যখন আপনি আপনার নিজের চোখে ছোট হবেন তখন আল্লাহ তায়া’লা আপনাকে সবার চোখে বড় বানিয়ে দিবেন, ইনশাআল্লাহ। সবাই ভাল ও নিরাপদ থাকবেন৷ সবার জন্য শুভ কামনা রইল।

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button
Close
Close