ভিটামিন সি’র অভাবে কী কী রোগ হয়?

ভিটামিন সি’র অভাবে কী কী রোগ হয়?

শরীরে সুস্থতা বজায় রাখতে পুষ্টি এবং খনিজগুলো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এ কারণে দরকার স্বাস্থ্যকর ও সুষম খাদ্য। ভিটামিন সি আমাদের শরীর সুস্থ রাখার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টির একটি। ভিটামিন সি হাড়ের গঠন, রক্তনালীর স্বাস্থ্য এবং ক্ষত নিরাময়ের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এটি একটি জৈব অম্ল, যা শাকসবজি, ফল প্রভৃতিতে পাওয়া যায়। মানুষসহ বিভিন্ন প্রাণী ও উদ্ভিদের জন্য একটি প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান।

এ কারণেই ভিটামিন-সি’র অভাবে অনেক রোগ হতে পারে, যা আরও অন্য জটিলতার কারণ হতে পারে।স্কার্ভি : স্কার্ভি হলো ভিটামিন-সি’র অভাবের সঙ্গে যুক্ত সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ রোগ। খাদ্যে ভিটামিন-সি’র অভাব হলে দাঁতের মাড়িতে ক্ষত সৃষ্টি হয়, মাড়ি থেকে রক্তপাত হয়। এছাড়াও দুর্বলতা, ক্লান্তি, ফুসকুড়ি এবং আরও অনেক কিছু হয়। প্রাথমিক উপসর্গগুলোর মধ্যে রয়েছে ক্লান্তি, খিদে কম হওয়া, বিরক্তি এবং জয়েন্টে ব্যথাও হতে পারে। সঠিক সময়ে চিকিৎসা না নিলে রক্ত স্বল্পতা, মাড়ির প্রদাহ, ত্বকের রক্তক্ষরণ ইত্যাদি হতে পারে।

হাইপারথাইরয়েডিজম : যখন থাইরয়েড গ্রন্থি অতিরিক্ত হরমোন নিঃসরণ করে, তখন এটিকে হাইপারথাইরয়েডিজম বলে। অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টির সঙ্গে ভিটামিন-সি থাইরয়েড ঠিক রাখার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। দীর্ঘস্থায়ী ভিটামিন-সি’র অভাবে থাইরয়েড গ্রন্থি থেকে হরমোনের অতিরিক্ত নিঃসরণ হতে পারে, যা হাইপারথাইরয়েডিজমের দিকে নিয়ে যায়। যার ফলে ওজন কমে যায়, হৃৎস্পন্দন বাড়ে, খিদে বাড়ে।

রক্ত স্বল্পতা : খাদ্য তালিকায় ভিটামিন-সি অন্তর্ভুক্ত করা খুব গুরুত্বপূর্ণ। অন্যান্য উপকারিতা ছাড়াও ভিটামিন সি আয়রন শোষণে সাহায্য করে, যা রক্ত স্বল্পতার মতো রোগ প্রতিরোধের জন্য অত্যাবশ্যক। যা শরীরের লোহিত রক্তকণিকার সংখ্যা কমে যাওয়ার একটি ফল। এই রোগের উপসর্গগুলো হলো ক্লান্তি, শ্বাসকষ্ট, মাথা ঘোরা, ওজন কমে যাওয়া ইত্যাদি।মাড়ি থেকে রক্তপাত : যখন আমাদের দাঁতের স্বাস্থ্যের কথা আসে, ভিটামিন-সি সেক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

এটি শুধু দাঁতকেই মজবুত করে না, মাড়িকেও রক্ষা করে। অতএব, ভিটামিন-সি’র অভাবে মাড়ি থেকে রক্ত পড়া এবং মাড়ির রোগ হতে পারে।ত্বকের রোগ : ভিটামিন সি ত্বকের স্বাস্থ্য বজায় রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এতে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট বৈশিষ্ট্য রয়েছে এবং এটি কোলাজেন উৎপাদনে মুখ্য ভূমিকা পালন করে।

কোলাজেন একটি প্রোটিন, যা ত্বক, চুল, জয়েন্ট ইত্যাদির মতো সংযোজক টিস্যুতে প্রচুর পরিমাণে থাকে, যা স্বাস্থ্যকর ত্বকের জন্য গুরুত্বপূর্ণ।কীভাবে শরীরে ভিটামিন সি-র অভাব মেটাতে হবে? প্রতিদিনের খাদ্যাভাসে ভিটামিন-সি সমৃদ্ধ খাবার অন্তর্ভুক্ত করা জরুরি। প্রচুর পরিমাণে সাইট্রাস ফল,

ভিটামিন-সি সমৃদ্ধ শাকসবজি খেতে হবে ও ধূমপান এড়ানো উচিত। কারণ গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে ধূমপায়ীদের শরীরে ভিটামিন-সি এর পরিমাণ কমে যায়। একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের সারা দিনে ৪০ মিলিগ্রাম ভিটামিন-সি প্রয়োজন। প্রয়োজনে ভিটামিন-সি সাপ্লিমেন্টগুলোও নেওয়া যেতে পারে। তবে যে কোনো সাপ্লিমেন্ট নেওয়ার আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Back to top button
Close
Close