দাদার চিন্তা-ভাবনা অনেক বড় পরিসরের: সিয়াম

দাদার চিন্তা-ভাবনা অনেক বড় পরিসরের: সিয়াম

হালের ক্রেজ সিয়াম আহমেদ সদ্য ঘুরে এসেছেন রাজশাহী থেকে। প্রকৃতির কাছে গিয়ে নিজেকে খুঁজেছেন, একই সঙ্গে খুঁজে নিয়েছেন সিনেমার শুটিং লোকেশন। সব কিছু ঠিক থাকলে আগামী ১৫ নভেম্বর থেকে রাজশাহীতে শুরু হবে তার ‘অন্তর্জাল’ সিনেমার পরবর্তী লটের শুটিং।

ঢাকা পোস্টের সঙ্গে একান্ত আলাপে সিয়াম নিজেই এ তথ্য জানিয়েছেন। তবে কতটুকু শুটিং বাকি আছে, কতদিন লাগতে পারে, তা নির্দিষ্ট করে বলেননি তিনি। তার ভাষ্য, ‘এটা তো নির্মাতা বলতে পারবেন। আসলে সিনেমাটিতে অনেক ভ্যারিয়েশন থাকবে। সেটার জন্যই লোকেশনের ভিন্নতা প্রয়োজন।’অন্তর্জাল’

সিনেমাটি নির্মিত হচ্ছে প্রযুক্তি ও সাইবার জগত নিয়ে। তাহলে রাজশাহীতে শুটিংয়ের কারণ জানতে চাইলে সিয়াম বলেন, ‘আমাদের ডিজিটাল বাংলাদেশের একটা হাব কিন্তু রাজশাহী। এখানে আইটি পার্ক আছে। সেখানে আমরা কাজ করছি। তাছাড়া সিনেমায় আমি যে চরিত্রে অভিনয় করছি, সে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র। এসব কানেকশনের জন্যই এখানে শুটিং।’

সিনেমাটি নির্মাণ করছেন দীপংকর দীপন। ‘ঢাকা অ্যাটাক’ খ্যাত এই নির্মাতার সঙ্গে ইতোপূর্বে আরও একটি সিনেমায় কাজ করেছেন সিয়াম। সেটার নাম ‘অপারেশন সুন্দরবন’। গুণী এই পরিচালক সিয়ামের কাজ ও পরিশ্রমের প্রশংসাও করেছিলেন। এ কথা শুনে কিছু অবাক হয়ে হাসতে হাসতে সিয়াম বললেন, ‘তাই নাকি! কী বলেছে? আমাকে তো জীবনেও বলে না, এত খুশি তিনি!’ দীপংকর দীপনের সঙ্গে কাজের অভিজ্ঞতা কেমন? এ প্রশ্নের জবাবে সিয়াম বলেন, ‘পুরো ব্যাপারটি আসলে বিশ্বাস। শিল্পী পরিচালককে, কিংবা পরিচালক শিল্পীকে যদি বিশ্বাস করতে পারেন; তাহলেই একটা কাজ সুন্দর হয়।

এই ব্যাপারটা আমরা ধারণ করার চেষ্টা করি। এভাবেই দাদার সঙ্গে আমার সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। এটা ভাবতে ভালো লাগে যে, দাদার সঙ্গে পরপর দুটি সিনেমা হয়ে গেল।’সিয়াম আরও বলেন, ‘যেখানে একটা সিনেমা করতে গেলেই অনেকের মধ্যে সম্পর্কের অবনতি হয়ে যায়। সেখানে আমাদের সম্পর্কের উন্নতি হচ্ছে। আরেকটা ব্যাপার হলো, যখন নির্মাতা দ্বিতীয়বার বিশ্বাস রাখেন, তখন কিন্তু দায়িত্ব আরও বেড়ে যায়। মনে হয়, আমাকে এবার আরও ভালো কিছু করতে হবে, পরিশ্রম বেশি করতে হবে; যেন তার সম্মানটা থাকে।’

অল্প সময়ের ক্যারিয়ার হলেও এরই মধ্যে বেশ কয়েকজন নির্মাতার সিনেমায় কাজ করে ফেলেছেন সিয়াম। তাদের সঙ্গে দীপংকর দীপনের কাজের পার্থক্য কেমন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘প্রত্যেক নির্মাতাই নিজ নিজ ধাঁচে গল্প বলতে পছন্দ করেন। দাদার যে জিনিসটা অদ্ভুতভাবে ভালো, সেটা হলো- তার ভিজ্যুয়াল, স্ক্রিন, চিন্তা-ভাবনা সব কিছু অনেক বড় পরিসরের। সেটা চেষ্টা করলেও দেখা যাবে, ছোট করা যায় না।

যখন কেউ বিশাল পরিসরে কিছু বানাতে চাইবে, তখন পড়াশোনাটাও সেই লেভেলে করতে হবে। দর্শকরা কিন্তু এখন অনেক স্মার্ট। তাদের সামনে যেমন-তেমন কিছু উপস্থাপন করলেই হবে না। সেটা অবশ্যই যৌক্তিক হতে হবে।’ইন্ডাস্ট্রির নানবিধ সমস্যার কারণে অনেকে কাঙ্খিত কাজটি করতে পারেন না।

সে বিষয়ে ইঙ্গিত করে সিয়াম বলেন, ‘বড় ভিজ্যুয়াল দেখাতে চাইলেও আমাদের এখানে সুযোগটা কম। আমাদের বাজেট সমস্যা থাকে, প্রযুক্তিগত সমস্যা থাকে, টেকনিক্যাল বিষয়াবলি থাকে, সময় স্বল্পতা থাকে, আবার কিছু ক্ষেত্রে অনুমতি পাওয়া যায় না। এত সমস্যার পরও তিনি (দীপংকর দীপন) এত বিশাল বিশাল সিনেমা বাংলাদেশে বসেই বানাচ্ছেন, এটা আমাদের সবার জন্য গর্বের বিষয়।

আমারও ভালো লাগে, যখন তার বড় চিন্তার একটা অংশ হতে পারি। তার সঙ্গে কথা বললে আমার নিজের চিন্তাও বড় হয়। মনে হয়, এটাও হয়ত সম্ভব, আমাদের দেশেই সম্ভব।’ উল্লেখ্য, ‘অন্তর্জাল’ সিনেমায় সিয়াম আহমেদ ছাড়াও অভিনয় করছেন বিদ্যা সিনহা মিম, সুনেরাহ বিনতে কামাল, এবিএম সুমন প্রমুখ। সরকারের আইসিটি ডিভিশনের উদ্যোগে নির্মিতব্য এই সিনেমার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান মোশন পিপল স্টুডিও। সার্বিক সহযোগিতায় স্পেলবাউন্ড লিও বার্নেট। কেআই

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button
Close
Close