ঘুমের মধ্যে বার বার গলা শুকিয়ে যাওয়া যে কঠিন রোগের ইঙ্গিত দেয়, সচেতন হোন

ঘুমের মধ্যেই অস্বস্তি। তন্দ্রা এলেও একটানা নিশ্চিন্তে ঘুমনোর কোনও উপায় নেই। কারণ ঘুমের মধ্যেই বার বার গলা শুকিয়ে কাঠ। তাই ঘণ্টায় ঘণ্টায় ঘুম ভাঙছে। ফলে ঘুমটাই হচ্ছে না। কিন্তু শুধু ঘুমের ব্যাঘাত নয়। রো রোজই যদি এমন হতে থাকে, তা হলে সাবধান হোন এবং শীঘ্রই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। কারণ এই অসুখ বহু কঠিন রোগের উপসর্গ হতে পারে।

গলা শুকিয়ে যাওয়া বেশ কয়েকটি বড় রোগের প্রাথমিক উপসর্গ হতে পারে। দেখে নেওয়া যাক সেগুলি কী- ১. ডায়াবেটিস– এই রোগের একটি অন্যতম উপসর্গ হল গলা শুকিয়ে যাওয়া এবং পানির তৃষ্ণা পাওয়া। অতিরিক্ত পরিমাণে মূত্রের জেরে শরীরে পানির পরিমাণ কমতে থাকে তাই তৃষ্ণা পায়। তাই এই উপসর্গ দেখা গেলে সুগার লেভেল পরীক্ষা করান।

২. ডিহাইড্রেশন– শরীর ডিহাইড্রেটেড থাকলে এমন হয়। শরীরে যখন পানির মাত্রা কমে যায় তখনই গলা শুকোতে থাকে। শিশুদের ক্ষেত্রে ডিহাইড্রেশন মৃত্যুর কারণ পর্যন্ত হতে পারে। বেশি ঘাম হওয়া, পেট খারাপ ইত্যাদির জেরে ডিহাইড্রেশন হতে পারে। নিয়মিত তাই রাতে তৃষ্ণা পেলে সাবধান হোন।

৩. অবসাদ– বার বার গলা শুকিয়ে যাওয়া অ্যাংজাইটি, অবসাদেরও কারণ হতে পারে। সাধারণত এই বিষয়গুলি মানুষের এড়িয়ে যাওয়ার প্রবণতা থাকে। কিন্তু প্রাথমিক পর্যায়েই এগুলির চিকিৎসা দরকার।৪. সেপসিস– এর মতো ভয়ানক রোগেরও উপসর্গ রাতে গলা শুকনো। বিভিন্ন ধরনের জীবাণু থেকে শরীরে ইনফেকশনের ফলে এমন প্রভাব পড়ে। এবং গলা প্রায়ই শুকিয়ে যায়।

৫. হার্ট, কিডনি অথবা লিভার ফেইল করলেও এই সমস্যাগুলি হতে পারে। তাই গলা শুকিয়ে যাওয়ার মতো উপসর্গ এড়িয়ে না যাওয়ার পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা।৬. উচ্চ রক্তচাপ- প্রেশার যাদের হাই তাদের অতিরিক্ত ঘাম হওয়ায় শরীরে পানির মাত্রা ঠিক থাকে না। ফলে গলা শুকিয়ে যাওয়ার প্রবণতা থাকে।৭. স্ট্রোকের পরেও গলা শুকিয়ে আসে। এছাড়া অতিরিক্ত মদ্যপান, ধূমপান করলেও গলা শুকিয়ে যায়।

এ সম্পর্কিত আরও পোস্ট

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Back to top button
Close
Close