Home / Lifestyle / জামা-কাপড়ের দাগ তোলার সহজ কৌশল

জামা-কাপড়ের দাগ তোলার সহজ কৌশল

কোন উৎসব কিংবা অফিস পার্টিতে যাবার জন্য সবাই পছন্দের পোশাকটি বেছে নেন। কিন্তু অসাবধানতার ফলে পছন্দের পোশাকটিতে চা-কফি, টমেটো সস কিংবা খাবারের তেল লেগে দাগ পড়লে মন খারাপ হয়ে যাওয়া স্বাভাবিক। পছন্দের বলে পোশাকটি ফেলে দিতেও মন চায় না,

তখন ওই দাগ তুলতে গিয়ে রীতিমতো হিমশিম খেতে হয়। কিছু নাছোড় দাগ হাজার চেষ্টার পরও যেতে চায় না। তবে কতগুলো কৌশল জানা থাকলে জামা-কাপড়ে লাগা বেশির ভাগ কড়া দাগ সহজেই তুলে ফেলা যায়।এবার জেনে নেওয়া যাক কোন ধরনের দাগ তুলতে কোন কৌশল কাজে লাগাবেন…

* জামা-কাপড়ে টমেটো সস বা কেচাপের দাগ খুবই বিরক্তিকর ব্যাপার! এই ধরনের দাগ তুলতে প্রথমে সাদা ভিনিগার তুলায় ভিজিয়ে দাগের উপরে হালকা করে ঘষে নিয়ে সেখানে সাবান লাগান। এবার জামা কেচে নিলেই দাগ সহজে উঠে যাবে।* তেলের কোন দাগ জামা-কাপড়ে পড়লে প্রথমে দাগের উপর বেবি পাউডার ছড়িয়ে দিন।

তারপর টুথব্রাশ দিয়ে হালকা করে ঘষে নিয়ে সেখানে সাবান লাগান। ফের আরেকবার টুথব্রাশ দিয়ে ঘষে নিলেই উঠে যাবে তেলের দাগও। তারপর পুরা কাপড়টা কেচে নিন।* গ্রিজের দাগ একবার কোথাও লাগলে, তা সহজে তোলা যায় না! তবে জামা-কাপড়ে লাগা গ্রিজের দাগ তোলারও উপায় আছে।

দাগের উপরে প্রথমে কিছুটা লবণ ছড়িয়ে দিন। দেখবেন, গ্রিজের দাগ লবণ শুষে নিচ্ছে। এরপর হাত দিয়ে ঝেড়ে ফেলুন বাকি শুকনো লবণ। ব্যস, দাগ অনেকটাই ফিকে হয়ে গেছে তো, এবার কেচে নিন পোশাকটি।* কফির দাগ তুলতে হলে প্রথমে সাদা ভিনিগার তুলায় ভিজিয়ে দাগের উপর লাগিয়ে তার উপর আধা চামচ বেকিং সোডা ছড়িয়ে দিন।

সোডা শুষে নিলে টুথব্রাশ ভিনিগারে ডুবিয়ে দাগের উপর হালকা করে ঘষে নিন। দেখবেন, দাগ অনেকটাই ফিকে হয়ে গেছে। শেষে দাগ লাগা কাপড়টা ভাল করে ধুয়ে নিন।* জামা-কাপড়ে একবার রেড ওয়াইনের দাগ লাগলে তা তোলা বেশ কষ্টকর। তবে এ দাগও তোলার উপায় রয়েছে।

রেড ওয়াইনের দাগ লাগা জামা-কাপড়ের উপর হোয়াইট ওয়াইন ঢেলে দিন। শুকিয়ে গেলে গোটা জামাটাই ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন, দাগ গায়েব!এই পদ্ধতিতে আপনার সন্তানদের পোশাকের দাগও তুলতে পারবেন। শিশুরাই তাদের পোশাকে বেশি দাগ লাগায়। স্কুল ড্রেস থেকে শুরু করে উৎসবের ড্রেসে যখন তখন দাগ লাগিয়ে ফেলে তারা। তাই বকাঝকা না করে এই পদ্ধতিতে চকচকে করে ফেলুন পোশাকটি।

About admin2

Check Also

বাচ্চার জন্য জরুরী পুষ্টি উপাদান

পুষ্টির ঘাটতি থাকলে বাচ্চার বিকাশ ধীরে হয় এবং বাচ্চার বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেয়। আসুন জেনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.